Home প্রিয় চট্টগ্রাম মহিউদ্দিন চৌধুরীর ৭৪ তম জন্মদিন উপলক্ষ্যে মিলাদ ও দোয়া মাহফিল

মহিউদ্দিন চৌধুরীর ৭৪ তম জন্মদিন উপলক্ষ্যে মিলাদ ও দোয়া মাহফিল

SHARE

৭৪ বছরে পা দিলেন চট্টগ্রামের সাবেক মেয়র ও মহানগর আওয়ামী লীগ সভাপতি আলহাজ্ব এ বি এম মহিউদ্দিন চৌধুরী।

আজ শুক্রবার আলহাজ্ব এ বি এম মহিউদ্দিন চৌধুরীর ৭৪ তম জন্মদিন উপলক্ষে মিলাদ ও দোয়া মাহফিলের আয়োজন করেছে চকবাজার থানা আওয়ামী লীগ। মিলাদ মাহফিল ও কেক কাটায় উপস্থিত ছিলেন চকবাজার ওর্য়াড কাউন্সিলর সাইয়েদ গোলাম হায়দার মিন্টু, থানা আওয়ামীলীগের সভাপতি আলহাজ্ব শাহাবুদ্দিন আহমেদ, সাধারন সম্পাদক আনসারুল হক, যুগ্ম-সাধারন সম্পাদক জাফর আহম্মদ চৌধুরী, সাইফুল ইসলাম ভূঁইয়া রাসেল, সাংগঠনিক সম্পাদক মোহাম্মদ নাজিম উদ্দিন, আবুল কালাম আজাদ, বঙ্গবন্ধু শিশু কিশোর মেলার পৃষ্টপোষক জাকির হোসেন, ওর্য়াড আওয়ামীলীগ নেতা সৈয়দ রফিকুল ইসলাম, আজম খাঁন, যুবলীগ নেতা মো: মহিউদ্দিন, মাকসুদ জামিল মারুফ, রিপন সিং, মো: বেলাল,স্বপন সিং, মো: ফাহাদ প্রমুখ।

মিলাদ পরিচালনা করেন নবাব ওয়ালী বেগ খাঁ মসজিদের খতীব অধ্যাপক মওলানা আব্দুল মান্নান আশরাফী।

উল্লেখ্য, রাউজান উপজেলার গহিরা গ্রামের বক্স আলী চৌধুরীবাড়ির হোসেন আহমদ চৌধুরীর পুত্র মহিউদ্দিন চৌধুরীর জন্ম ১৯৪৪ সালের ১ ডিসেম্বর। রেলওয়ে কর্মকর্তা হোসেন আহমদ চৌধুরী ও বেদুরা বেগম দম্পতির চার ছেলে ও পাঁচ মেয়ে।

লেখাপড়া শুরু সীতাকুন্ড সদরের মনীন্দ্রনাথ প্রাইমারি স্কুলে। পরে সীতাকুন্ড হাইস্কুলে। বাবার বদলির সূত্রে নোয়াখালী জিলা হাইস্কুল, পটিয়া রাহাত আলী উচ্চ বিদ্যালয়, প্রবর্তক বিদ্যাপীঠ, কাজেম আলী হাইস্কুল, খন্দকিয়া শিকারপুর হাইস্কুলে পড়েছেন।

১৯৬২ সালে এসএসসি পাস করে ভর্তি হন সরকারি সিটি কলেজে। প্রথম বর্ষ শেষে পিতা ভর্তি করান চট্টগ্রাম পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটে। রাজনৈতিক কারণে বহিষ্কৃত হয়ে আবার ফেরেন সিটি কলেজে। ১৯৬৫ সালে এইচএসসি এবং ১৯৬৭ সালে গ্র্যাজুয়েশন শেষ করেন।

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিভাগ এবং পরে আইন কলেজে ভর্তি হলেও শেষ করেননি প্রাতিষ্ঠানিক লেখাপড়া। এর আগেই জড়িয়ে পড়েন ছাত্র আন্দোলনে। ১৯৬৮ সালেই নগর ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক হন। ১৯৬৯ সালেও ছিলেন একই পদে।

মুক্তিযুদ্ধে সম্মুখ সমরের যোদ্ধা মহিউদ্দিন দেশ স্বাধীনের পর শ্রমিক রাজনীতিতে যুক্ত হন। যুবলীগের নগর কমিটির সাধারণ সম্পাদকও ছিলেন তিনি। ১৯৮৬ সালে রাউজান থেকে এবং ১৯৯১ সালে নগরীর কোতোয়ালি আসনে সংসদ নির্বাচন করে পরাজিত হন। ১৯৯৪ সালে প্রথমবার চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের মেয়র পদে প্রার্থী হয়েই বিজয়ী হন। ২০০০ সালে দ্বিতীয় দফায় বিনা প্রতিদ্ব›িদ্বতায় এবং ২০০৫ সালে তৃতীয় দফায় মেয়র নির্বাচিত হন মহিউদ্দিন। ২০০৬ সালের ২৭ জুন নগর আওয়ামী লীগের সভাপতি হন মহিউদ্দিন চৌধুরী। এর আগে প্রায় দুই যুগ সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করেন।

সূত্রঃ সিটিজি টাইমস